স্বপ্নিল হৃদয়ের স্বপ্নপুরী

স্বপ্নপুরী বিনির্মাণের কাজ চলছে
সকলের অংশগ্রহণ এবং পরামর্শ জরুরী ।


*
Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri Road

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

Sopnopuri_images

পূর্বোল্লিখিত বিবরণের পর -


** হ্যাঁ বন্ধু তোমার প্রথম প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি- এরিয়া কোড নং হচ্ছে নির্বাচনি আসনগুলোর একটা সাংকেতিক নং যেমন “DH01” যেটা নির্বাচন কমিশন নির্ধারণ করে থাকে। এটি একটি ইউনিক নং অর্থাৎ যতগুলো নির্বাচনী আসন ততগুলো আলাদা আলাদা কোড নং। এই এরিয়া কোড দিয়ে নির্বাচনী আসনকে সনাক্ত করা হয়, এছাড়াও প্রায়ই বিভিন্ন কাজে এই এরিয়া কোড ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এবার তোমার দ্বিতীয় প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি, “না” বন্ধু; কোন ব্যক্তি তার একাধিক মোবাইল নং কে RMM Vote এর জন্য নিবন্ধন করাতে পারবে না, কারণ


কারণ প্রত্যেকের জাতীয় পরিচয় পত্রের নং টা হলো ইউনিক নং। বিধায় একটা জাতীয় পরিচয় পত্রের নং এর বিপরীতে শুধুমাত্র একটি মোবাইল নং-ই RMM Vote এর জন্য নিবন্ধন করা যাবে। অন্য কোন মোবাইল নং দিয়ে ভিন্ন কোন এরিয়া বা আসনের জন্য নিবন্ধন করাতে গেলেও সেক্ষেত্রে পূর্বের নম্বরটি বাতিল হয়ে নতুন নম্বরটি প্রতিস্থাপিত হয়ে যাবে।


* বাঃ বেশ ভালোই তো মনে হচ্ছে, আচ্ছা একটা কথা বলোতো RMM Vote ব্যবস্থা রাখার ক্ষেত্রে তোমাদের বিজ্ঞজনেরা কি ধরনের যুক্তি দেখিয়েছেন?

** দেখ হৃদয়, আমরা পরিপূর্ণ গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। আমরা বিজ্ঞানের সদ্ব্যবহার, প্রযুক্তির সদ্ব্যবহার করে থাকি সর্বত্র এবং সেটি গণতন্ত্র চর্চার ক্ষেত্রেও। আর এরই ফলস্বরুপ আমরা একবার নয়, দুইবার নয় অগণিত বার ভোট প্রদান করে থাকি। যখনই কোন নতুন আইন, জাতীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট সিদ্ধান্ত, সংবিধান সংশোধন এরূপ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমরা ভোট প্রদান করে থাকি। তবে শুধুমাত্র জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের ক্ষেত্রে দুইটা পদ্ধতিতে ভোটপ্রদান করে থাকি অর্থাৎ ব্যালট ভোট এবং RMM Vote আর অন্যান্য সকল ক্ষেত্রে শুধুমাত্র RMM Vote এর মাধ্যমে মতামত প্রদান করে থাকি।


* বেশ জটিল প্রক্রিয়া মনে হচ্ছে একটু বুঝিয়ে বলবে?

** হ্যাঁ শোন, আমাদের ওখানে কোন নির্বাচনী আসনের চূড়ান্ত জাতীয় নির্বাচনে সর্বোচ্চ সাত জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে পারে এবং সে সাত জন প্রার্থীকে RMM Vote এর মাধ্যমে বাছাই করা হয় অর্থাৎ RMM Vote এর মাধ্যমে প্রাপ্ত ফলাফল এর ভিত্তিতে শীর্ষ থেকে সাতজন প্রার্থীকে চূড়ান্ত জাতীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার সুযোগ দেওয়া হয়। তাছাড়া প্রতিটি নির্বাচনী আসনের অন্তর্গত ভোটার তালিকা পৃথক এবং তা নির্বাচনের পূর্বেই হালনাগাদ করা থাকে।

*আচ্ছা বন্ধু তোমাদের ওখানে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হয় কিভাবে?

** দেখ, আমাদের ওখানে চূড়ান্ত জাতীয় নির্বাচনের তারিখ ধার্য্য করা হয় ৬ মাস পূর্বেই। নির্বাচন কমিশন চূড়ান্ত নির্বাচনের ৫মাস পূর্বেই একটা জন্মতারিখ নির্দিষ্ট করে দেন সে অনুযায়ী নির্বাচনের তারিখও যারা ভোটার হওয়ার যোগ্য তাদেরকেও তালিকাভুক্ত করা হয়। তাছাড়া যাতে কমপক্ষে ১সপ্তাহ পূর্বেই চূড়ান্ত তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা যায় সেজন্য খসড়া তালিকা ১মাস পূর্বেই ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে এবং সেঅনুযায়ী যেকোনোপ্রকার সংশোধন সাপেক্ষে চূড়ান্ত তালিকা ঠিক সময়মতই প্রকাশ করা হয়।

* তারপর-

** তারপর যথাসময়েই চূড়ান্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সংশ্লিষ্ট আসনের ভোটারগণ ব্যালট ভোট এবং RMM Vote এর মাধ্যমে তার ভোটাধিকার প্রদান করেন।


* আচ্ছা বন্ধু, একজন ভোটার যদি দুইবার ভোট প্রদান করে তাহলে মোট ভোটার-এর সংখ্যা কিভাবে ঠিক থাকবে?

** হ্যাঁ বন্ধু এক্ষেত্রে যে ব্যবস্থা আছে তা হলো ব্যালট ভোটার এর মোট সংখ্যার ৬০% এবং RMM Voter এর মোট সংখ্যার ৪০% এই মোট ১০০% হিসাবে গণ্য করা হয়। এসংক্রান্ত একটা খসড়া হিসাব পদ্ধতি আমার নিকট আছে তুমি চাইলে দেখতে পারো। এছাড়া তুমি চাইলে এই লিংকে ক্লিক করে যেকোন সময় যেকোন যায়গা থেকে দেখে নিতে পারো।

পরবর্তী বিবরণ


সাইট-টি আপনার ভাল নাও লাগতে পারে, তবুও লাইক দিয়ে উৎসাহিত করুনঃ

শেয়ার করে প্রচারে অবদান রাখতে পারেন

Say something

Please enter name.
Please enter valid email adress.
Please enter your comment.